মঙ্গলবার | ৫ই মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
শ্রীমঙ্গলের সেন্ট মার্থাস উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরনী ফুলতলা ইউনিয়নে আইনশৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত মৌলভীবাজারে একতা যুব সংস্থার তাফসিরুল কোরআন মাহফিল ৩০ জানুয়ারি শীতার্ত মানুষের কল্যাণে স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার সোসাইটির শীতবস্ত্র বিতরণ ‘বলাই-সজীব ভাই-ভাই, এক দড়িতে ফাঁসি চাই’ কুশিয়ারা পাড়ের ঐতিহ্যবাহী পৌষ সংক্রান্তির মাছের মেলা অদক্ষ চালক কেড়ে নিল প্রাণ; নতুন বই নিয়ে বাড়ি ফিরা হল না খাদিজার কুলাউড়ায় ঐতিহ্যবাহী ‘মাছের মেলা’ নবনির্বাচিত কৃষিমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়েছে জেলা আওয়ামিলীগ শ্রীমঙ্গলে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে ত্রিপুরা পল্লীতে শীতবস্ত্র বিতরন

কুলাউড়ায় ৯ বছর আগের মারামারির মামলায় দুজনের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০২৩, ৯:১২ অপরাহ্ণ

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় ২০১৫ সালে কবরস্থান নিয়ে বিরোধের জেরে হামলার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় দুই জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও অপর দুইজনকে অর্থদণ্ড দিয়েছেন মৌলভীবাজারের চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।

গতকাল মঙ্গলবার মৌলভীবাজারের চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সৈয়দ মোহাম্মদ কায়ছার মোশাররফ ইউসুফ এ রায় ঘোষণা করেন।

২০১৫ সালে কুলাউড়া থানায় দায়ের হওয়া (জিআর মামলা নং ২০৬) মামলাটি দীর্ঘ ৯ বছর পর আদালত এই রায় দেন।

রায়ে আসামি শফিক মিয়াকে দণ্ডবিধি ৩২৪ ধারায় এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ৩ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে একমাস বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও অপর আসামি মো. চিনু মিয়াকে দণ্ডবিধি ৩২৫ ধারায় ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ৫ বছরের অর্থদন্ড অনাদায়ে দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।

এছাড়াও আসামী মো: শাহজাহান মিয়া ও ইব্রাহীম মিয়া-কে দন্ডবিধি ৩২৩ ধারায় অর্থদন্ড প্রদান করেন। মামলায় ৯ জন আসামী খালাস পান। তারা হলেন, শাহান মিয়া, সাব্বির হোসেন, মন্তর মিয়া পিতা: সোনা মিয়া, মন্তর মিয়া পিতা: সোয়াব মিয়া, সাজিদ মিয়া, মো: ছিফত মিয়া, ছমেদ মিয়া, কবির মিয়া ও নানু মিয়া। এছাড়াও ওই মামলা চলাকালিন সময়ে অপর দুই আসামী বাজিদ মিয় ও রফিক মিয়ার মৃত্যু হয়।

বুধবার (২২ নভেম্বর) আদালত সূত্রে জানা যায়, কুলাউড়া উপজেলার ৫নং ব্রাম্মনবাজার ইউনিয়নের সাতবা গ্রামে ২০১৫ সালের ১২ আগস্ট কবরস্থান নিয়ে দ্বন্দের জেরে ওই গ্রামের ফারুক মিয়া, সুলতান মিয়া, আব্দুল মন্নাফ ও আবু তালেব এর উপর হামলা হয়। হামলার এ ঘটনায় ফারুক মিয়া, সুলতান মিয়া, আব্দুল মন্নাফ ও আবু তালেব আহত হলে ফারুক মিয়া বাদী হয়ে একই বছরের আগস্টে কুলাউড়া থানায় ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। মামলাটির দীর্ঘ ৯ বছর বিচার প্রক্রিয়া শেষে এই রায় প্রদান করেন আদালত।


আরও পড়ুন
Hexus IELTS