মঙ্গলবার | ৫ই মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
শ্রীমঙ্গলের সেন্ট মার্থাস উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরনী ফুলতলা ইউনিয়নে আইনশৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত মৌলভীবাজারে একতা যুব সংস্থার তাফসিরুল কোরআন মাহফিল ৩০ জানুয়ারি শীতার্ত মানুষের কল্যাণে স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার সোসাইটির শীতবস্ত্র বিতরণ ‘বলাই-সজীব ভাই-ভাই, এক দড়িতে ফাঁসি চাই’ কুশিয়ারা পাড়ের ঐতিহ্যবাহী পৌষ সংক্রান্তির মাছের মেলা অদক্ষ চালক কেড়ে নিল প্রাণ; নতুন বই নিয়ে বাড়ি ফিরা হল না খাদিজার কুলাউড়ায় ঐতিহ্যবাহী ‘মাছের মেলা’ নবনির্বাচিত কৃষিমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়েছে জেলা আওয়ামিলীগ শ্রীমঙ্গলে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে ত্রিপুরা পল্লীতে শীতবস্ত্র বিতরন

চাবাগানের ভেতর লাল শাপলার রাজত্ব!

শুভ গোয়ালা
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩, ৬:৫৫ অপরাহ্ণ

চারিদিকে সবুজ চায়ের গালিচা তার মাঝখানে চোখ জুড়ানো শাপলা ফুলের সমারোহ। পানির উপর ফুটে থাকা লাল শাপলা ফুলের অপরুপ সৌন্দর্য যে কাউকে মুগ্ধ করবে। চোখে না দেখলে নজরকাড়া সৌন্দর্যের অনুমান করা যায় না।

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার ব্রাক্ষণবাজার ইউনিয়নের হিংগাজিয়া চা-বাগানে অবস্থিত ‘কাটাইলিয়া লেক’। আগে শুধু কাটাইলিয়া নামে পরিচিত হলেও সেখানকার সুন্দর্যের কারনে পর্যটকরা কাটাইলিয়া লেক নাম দিয়েছেন। এই কাটাইলিয়া লেকে ফুটেছে চোখে লাগার মতো লাল শাপলা ফুল। দূর থেকে দেখা মাত্র মুখ থেকে বেরিয়ে আসবে ‘বাহ কি সুন্দর’। তখন মনের অজান্তেই গুনগুনিয়ে উঠবেন, ‘তুমি সুতোয় বেঁধেছ শাপলার ফুল, নাকি তোমার মন….’

কাটাইলিয়ে লেকে গেলে চারিদিক থেকে ভেসে আসে বিভিন্ন প্রজাতির পাখির কোলাহল। লেকের পাড়ে ঘুরতে থাকলে দেখা যাবে বানর এক গাছের ডাল থেকে অন্য গাছের ডালে লাফাতে। হাটার মধ্যে কাঠবিড়ালের আগমন বেশ ভালোই লাগে, এছাড়াও রয়েছে দেশী হরেক প্রজাতির আনাগোনা। এটি আশেপাশের পরিবেশকে মনোমুগ্ধকর করে তুলেছে।

স্থানীয়রা জানান, এখানের সুন্দর্য সবাইকে মুগ্ধ করে। এই কাটাইলিয়ার কারনে এই স্থানের সুন্দর্য ফুটে উঠেছে। আমাদের আশে পাশের গ্রামের অনেকেই এখানে ঘুরতে আসেন।

পর্যটক বাপ্পন দেবনাথ বলেন, এমন অপরুপ সুন্দযের মধ্যে লাল শাপলার রাজত্ব মনকে প্রফুল্ল করে তুলেছে।

সিলেট থেকে কাটাইলিয়া লেকে ঘুরতে আসা মিমি বলেন, আমার দেখা অন্যতম একটি লেক। উঁচুনিচু চায়ের টিলা এবং লেকের মনকাড়া সুন্দর্য আমাকে মুগ্ধ করেছে। এই লেকটিকে আরো সুন্দর করলে এই উপজেলায় আরো একটি পর্যটক স্থান যোগ হবে।

এই ব্যাপারে হিংগাজিয়া চা-বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক শাহরিয়ার পারভেজ বলেন, এটি একটি চা কোম্পানির প্রাইভেট প্রোপার্টি বিভিন্ন বিধিনিষেধের কারনে এটি আমারা পর্যটকদের জন্যে উন্মুক্ত করতে পারবো না। কাটাইলিয়া মূলত চা গাছে পানি সেচের জন্য করা হয়েছে ।


আরও পড়ুন
Hexus IELTS